পৃথীবির সবচেয়ে দামী কিছু খাবার !

  চলুন জেনে নেওয়া যাক পৃথীবির সবচেয়ে দামী কিছু খাবার সম্পর্কে !



অ্যাকোয়া ডি ক্রিস্টাল

 

মানুষের সৌখিনতার কোন শেষ নেই৷ পৃথিবীতে এমন মানুষ বাস করে যাদের রয়েছে ধন-সম্পদের এক বিরাট ভান্ডার৷  মানুষের শৌখিনতা কোন পর্যায়ে পৌঁছালে মাত্র ৭৫০ মিলিলিটার একটি পানির বোতল ক্রয় করার জন্য ছয় হাজার মার্কিন ডলার খরচ করে? 

 

এই পানির বোতলে থাকা পানি আর সকল মিনারেল ওয়াটারের  মতই৷ তবে এই পানির বোতলের মূল বৈশিষ্ট্য হচ্ছেএটি পুরোটাই স্বর্ণ দিয়ে তৈরি৷ সাধারণ মিনারেল ওয়াটার এই বোতলে ভরে তা আকাশ ছোয়া দামে বিক্রি করা হয়৷ 

 

.ফ্যাবেজ চকলেট পুডিংইংল্যান্ডের কাবলিয়া জেলায় তৈরি করা হয় এই চকলেট পুডিং৷  ক্যাট্রী হাউস হোটেলের প্রধান বাবুর্চি কেবলমাত্র এই চকলেট পুডিং তৈরি করেন৷ এই পুডিং এর স্বাদ গন্ধ অন্য আর দশটা চকলেট পুডিং এর মতই তবে। 

 

তবে এতে ব্যবহার করা হয়েছে চার ধরনের বেলজিয়াম চকলেটতবে অনেক সময় কমলা এবং হুইস্কি ফ্লেভার এবং তার সাথে খাদ্য হিসেবে গ্রহণযোগ্য স্বর্ণ যোগ করা হয়৷ 

 

এই চকলেট পুডিং খাওয়ার জন্য আপনাকে গুনতে হবে মাত্র ২৪  হাজার মার্কিন ডলার৷ 

 

.আলমাস ক্যাভিয়ার 

 

এগুলো সাধারন কোন ক্যাভিয়ার নয়৷ বরং এগুলো সংগ্রহ করা হয় বিলুপ্ত এক প্রজাতির মাছের পেট থেকে৷  মুক্তোর মতো দেখতে মাছের ডিম গুলো নিঃসন্দেহে বেশ সুস্বাদু৷ সাধারণত ৬০ থেকে ৮০ বছর বয়সের মাছের দেহ থেকে ডিম সংগ্রহ করা হয়৷  যে কারণে এ খাবারটির দাম আকাশছোঁয়া৷  মাত্র ২ পাউন্ড ক্যাভিয়ারের আপনাকে গুনতে হবে ৩৪৫০০ মার্কিন ডলার৷ 

 

.ফ্রজেন হট চকলেট আইসক্রিম:এটি  বিশ্বের সবচেয়ে দামি চকলেট দিয়ে তৈরি কোকো আইসক্রিম এবং তার সাথে রয়েছে খাদ্য হিসেবে গ্রহণযোগ্য স্বর্ণ৷ এই আইসক্রিমের একদম নিচে মিলবে ১৮  ক্যারেটের স্বর্ণের তৈরি একটি ব্রেসলেট৷  যা আপনাকে উপহার হিসেবে দেয়া হবে৷  এবং তার সাথে থাকছে সোনার চামচ৷  এই চামচটি ও আপনাকে দিয়ে দেওয়া হবে সাথে নিয়ে যাওয়ার জন্য ।এগুলো যেখানে বিক্রি করা হয় সেটি আদোও কোনো আইস্ক্রিমের শপ নাকি জুয়েলারি শপ সেব্যাপারে সন্দেহ রয়েছে৷ 

 

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে এই আইসক্রিম খাওয়ার জন্য আপনাকে গুনতে হবে ২৫৫৫০ মার্কিন ডলার৷ 

 

.ফ্রোস্টেস্ট স্টিস্ট ফিশর্ম্যান: এই দাঁতভাঙ্গা নামের খাবারটি কেবলমাত্র পাওয়া যায় শ্রীলংকায়৷  ফ্রস্টেস্ট রেস্টুরেন্টের ইতালির ঐতিহ্যবাহী স্পঞ্জ কেক এর সাথে ফলের স্বাদ  যুক্ত আইরিস ক্রীম দিয়ে তৈরি করা হয় এই ডেজার্ট৷ 

 

এই ডেজার্টের জন্য আপনাকে গুনতে হবে ১৪৫০০ মার্কিন ডলার৷ 

 

.ত্রয়োদশ লুইস পিৎজা: কেবলমাত্র ইতালিতে তৈরি করা এই পিৎজা৷ যার নাম ছড়িয়ে গেছে সারা বিশ্বে৷ বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত একদল রন্ধনশিল্পী এই পিৎজা তৈরি করে৷ তারা খুবই স্বল্প পরিমাণে এবং বছরে  নির্দিষ্ট পরিমাণে পিৎজা  তৈরির অনুমতি পায়৷ আর তা তৈরি করা হয় শুধুমাত্র বিশেষ বিশেষ ব্যাক্তিদের জন্য৷   উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের প্রিয় খাবারের তালিকা রয়েছে এই পিৎজা৷ শ্যাম্পেইন  ভেজানো কালো  ক্যাভিয়ার নরওয়ের গলদা এবং ভূমধ্যসাগরের বাগদা চিংড়ি দিয়ে তৈরি করা হয় এই খাবারটি৷ 

 

দুজনের খাবার  জন্য পিৎজা অর্ডার করলে আনুমানিক ১২০০০ মার্কিন ডলার থেকে শুরু করে ১৬০০০ হাজার মার্কিন ডলার গুনতে হবে৷  উপকরণ এর ওপর দাম একটু এদিক ওদিক হয়। 

 


.পশ পাই : অস্ট্রেলিয়ার সিডনি শহরে অবস্থিত একটি হোটেলে তৈরি করা হয় এই অদ্ভুত নামের খাবারটি৷ প্রিমিয়াম বিফঅস্ট্রেলিয়ার পাথুরে অঞ্চলে উৎপাদিত গলদা চিংড়ি এবং এক ধরনের কালো ছত্রাক দিয়ে তৈরি করা হয় এই খাবারটি।  সেই সাথে কিছু স্বর্ণের পাতাও দেয়া হয়েছে৷ এই খাবারটি খাওয়ার জন্য আপনাকে গুনতে হবে কেবল মাত্র ১২ হাজার মার্কিন ডলার৷ 

 

.দেনোসুকি তরমুজঃ এই তরমুজের আকৃতি অন্য তরমুজ গুলোর  চেয়ে তুলনামূলক বড়৷ সাধারণত ১০ কেজি ওজনের হয়ে থাকে৷ এই ধরনের তরমুজ গুলো সবুজ বর্ণের না হয়ে কালচে বর্ণ ধারণ করে৷  কাঁচা অবস্থায় এগুলো সবুজ বর্ণের থাকে৷  এই তরমুজ এতই দুষ্প্রাপ্য যে শুধুমাত্র জাপানের হাক্কাই দ্বীপে পাওয়া যায়৷ এই দুষ্প্রাপ্য তরমুজ এবং প্রতি বছর মাত্র ১০ হাজার   তরমুজ উৎপাদিত হয়৷ মাত্র একটি তরমুজের  জন্য আপনাকে গুনতে হবে প্রায় ছয় হাজার মার্কিন ডলার৷ 

 


.ফ্লার বার্গার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের লিউ বার্ড কেলারের তৈরি এ বার্গার তৈরীর  কাজে ব্যবহার করা হয় গরুর মাংস৷ উপরের অংশের ব্রেডে ব্যবহার করা হয় এক ধরনের ছত্রাক৷ স্বাদ বর্ধনের জন্য ব্যবহার করা হয় হাঁসের  কলিজা৷ বার্গারের সাথে পরিবেশন করা হয় এক বোতল দামী ওয়াইন৷ বার্গার টি খেতে আপনাকে গুনতে হবে পাঁচ হাজার মার্কিন ডলার৷

 

 অকারণেইতাইনা?

 

১০.দ্য গোল্ডেন কেনলি : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি অঞ্চলে পাওয়া যায় এই খাবারটি৷ এটি মূলত এক ধরনের ইটালিয়ান পেস্ট্রি৷ এই পেস্ট্রির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হচ্ছে খাবার যোগ্য স্বর্ণ দিয়ে পুরোটাই মুড়ে দেওয়া  হয়৷  এই পেস্ট্রি টি কেবলমাত্র একটি পেস্ট্রি জন্য আপনাকে গুনতে হবে ২৬  হাজার মার্কিন ডলার৷ 

 

১১.পিৎজা রয়েল:

 

স্কটল্যান্ড এর কেবলমাত্র বেনালাপুলিতে তৈরি করা হয় এই পিৎজা৷ নরওয়ে গলদা চিংড়িখাদ্য হিসেবে গ্রহণ যোগ্য স্বর্ণবিলুপ্তপ্রায় মাছের তেল দিয়ে তৈরি মেয়োনিজ দিয়ে তৈরি করা হয় এই খাবারটি   এবং পরিবেশন করা হয় দামী ওয়াইন এর সাথে৷ 

 

১২.টলিবর্ডিনের  হুইস্কি

১৯৫২ সালে সংরক্ষণ করা এবং সম্প্রতি সময় সামান্য পরিমাণে বিক্রি করা এই হুইস্কি টির দাম প্রায় ৩০ হাজার মার্কিন ডলার৷ এই হুইস্কি গুলো বিশেষভাবে তৈরি করা একটি বোতলে বিক্রি করা হয়৷ 

 

১৩.ব্লুফিন টুনা: টুনা মাছের এই প্রজাতি টি ইতিমধ্যে বিলুপ্তির পথে চলে গেছে৷ তবুও এই মাছ শিকার বন্ধ হয়নি এখনো৷ কিন্তু অবিরল বলে বাজারে এই মাছের এক পাউন্ড মাংস বিক্রি হয় চার হাজার ডলার দিয়ে। 

 



১৪.সমন্দরি কারী ইংল্যান্ডের লন্ডনে একটি ভারতীয়  রেস্টুরেন্টে মিলবে কারী৷ এই পদটি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে বিভিন্ন জাতের গলদা চিংড়িখাদ্য হিসেবে গ্রহণ যোগ্য স্বর্ণেবিভিন্ন ভারতীয় মসলা এবং কিছু সিক্রেট উপাদান৷  রেস্টুরেন্টে বসে এই কারিটি খেতে হলে আপনাকে গুনতে হবে প্রায় ৭ হাজার মার্কিন ডলার৷ 

 

১৫.পাখির বাসার স্যুপ: দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতেবিশেষ করে চিনে পাখির বাসার স্যুপ একটি জনপ্রিয় এবং দামি খাবার । সুইট নামক এক পাখির লালা থেকে নিঃসৃত এক ধরনের রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে তৈরি হয় এই ধরনের পাখির বাসা৷ পরবর্তীতে এগুলো প্রক্রিয়াজাত করে তৈরি করা হয় স্যুপ৷  এবং এই এক টি স্পুন স্প্যুপ খেতে আপনাকে গুনতে হবে প্রায় ১ হাজার মার্কিন ডলার। 

 

১৬.ওয়াগিয় রেবাই স্টেক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে গিয়ে খেতে পারবেন এই খাবারটি৷  এই বিশেষ পদ টি মূলত  জাপানি গরুর মাংস দিয়ে তৈরি করা হয়৷   এই গরুর  বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছেএদের প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে বিয়ার খাওয়ানো হয়৷  এবং গা ডলাই মালাই করা হয় ।  মাত্র ৪০ পাউন্ড ওজনের গরুর মাংসের দাম পড়বে ২০০০ মার্কিন ডলার৷ 

 

১৭টু থার্টি ফিফথ হটডগ :মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে কেবলমাত্র আপনি এই খাবারটি খেতে পারবেন৷ ইউহতিস নামক এক হোটেলে তৈরি করা হয় বিশ্বের সবচেয়ে দামি হটডগটি৷  মূলত জাপানি ওয়াগিয় গরুর মাংস এই হটডগ তৈরির মূল উপাদান৷ এই হটডগ টি তৈরীর পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে সময় লাগে ৪৮ ঘন্টা৷  এছাড়াও সাথে ব্যবহার করা হয় এক ধরনের সুগন্ধিযুক্ত ইরানি জাফরান৷ 

 

এবং একটি হটডগ এর জন্য আপনাকে খরচ করতে হবে ২৩০০ মার্কিন ডলার৷ 

 

১৮টাকো : ইতালির একটি পাঁচতারকা হোটেলে তৈরি করা হয় বিশ্বের সবচেয়ে দামি টাকো৷  চিংড়ি মাছগরুর মাংস  সবচেয়ে দামি আলমাস ক্যাভিয়ারএক ধরনের বিশেষ চিজ এবং খাদ্য হিসেবে গ্রহণ যোগ্য স্বর্ণ দিয়ে তৈরি করা হয় এই টাকো৷ 

 

মাত্র একটি টাকো খেতে হলে আপনাকে গুনতে হবে ২৫ হাজার মার্কিন ডলার৷ 

 

১৯.হোয়াইট আলবা  :  এটি মূলত সাদা বর্ণের এক ধরনের ছত্রাক যা বিভিন্ন খাদ্যের যোগ করা হয় মসলা হিসেবে৷  এই ছত্রাকের মূল বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এগুলো সব জায়গায় জন্মায় না৷  এবং এর চাষ খুব কঠিন৷  বিশ্বের অন্যসব ছত্রাকের তুলনায় ইতালির সাদা বর্ণের এই ছত্রাকটি সবচেয়ে দামি৷ যার  একাংশ  কিনতে আপনাকে খরচ করতে হবে অন্তত ৭হাজার মার্কিন ডলার৷ 

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য